Showing posts with label Unemployment. Show all posts
Showing posts with label Unemployment. Show all posts

Saturday, 13 January 2018

কখন থেকে বিসিএস ব্যাংক চাকরির পড়াশুনা শুরু করব?

আমি বিশ্ববিদ্যালয়ের ১ম বা ২য় বর্ষের ছাত্র/ ছাত্রী আমি আমার ক্যারিয়ার গড়ার জন্য কিভাবে আগাবো

কখন থেকে বিসিএস/ ব্যাংক চাকরির জন্য পড়া শুরু করব?

এমন প্রশ্ন অহরহ আমাদের কাছে আসে। এখন বিসিএস উন্মাদনায় অনেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের ১ম বা ২য় বর্ষ থেকে চাকরির পড়াশুনা শুরু করতে চায়।

চাকরির পড়াশুনা শুরু মোক্ষম সময়ঃ
বিসিএস বা ব্যাংক চাকরির জন্য ৩য়/ ৪র্থ বর্ষের শুরু থেকে পড়া উচিৎ। 


বিশ্ববিদ্যালয় জীবনের প্রথম থেকে টিউশনি করতে হবে/ কোচিং সেন্টারে ক্লাস নিতে হবে ক্লাস - ১২ এর ইংরেজি, বাংলা, গণিত, বিজ্ঞান পড়াতে হবে। এতে আপনার টাকা পয়সা কামানো হল পাশাপাশি চাকরির পড়াশুনায় হেল্প হল কারণ বিসিএস বা ব্যাংক চাকরি পরীক্ষার প্রশ্ন এই সব বই থেকেও আসে। 
আপনি যদি বিশ্ববিদ্যালয়ের ১ম বা ২য় বর্ষ থেকে চাকরির পড়াশুনা শুরু করেন তাহলে আপনার প্রায় একই পড়া - বছর পড়তে হবে। এতে আপনি শেষ সময়ে বিরক্ত হয়ে যাবেন। পড়ালেখাকে তিতা মনে হবে।


আর সাথে সাথে নিজ ডিপার্টমেন্টের পড়াশুনা করতে হবে। মিনিমাম সিজিপিএ না থাকলে তো আপনি অনেক চাকরিতে আবেদনই করতে পারবেন না। কমপক্ষে .২৫ রাখবেন। এছাড়া ভালো (CGPA 3.25 minimum) থাকলে চাকরির ভাইভায় একটা ভালো ইম্প্রেশন তৈরি হয়।

নিজ ডিপার্টমেন্টের সকল পরিক্ষা ইংরেজি মাধ্যমে দিবেন এতে আপনার ইংলিশ রাইটিং স্কিল অনেক ভালো হয়ে যাবে।


ভার্সিটির ক্যারিয়ার ক্লাবে যোগদান করবেন এবং সেখানে একটিভ থাকবেন। এধরনের ক্লাব বিভিন্ন জব ফেয়ার করে, সেখানে নিজের সিভি ড্রপ করলে একটা চাকরি পাওয়ার সম্ভাবনা তৈরি হয়।

Wednesday, 3 January 2018

আপনার বেঁকারত্বের হতাশা দূর করবে এই পোস্ট

আপনি কি বেঁকার? বার বার বিসিএস, ব্যাংক ও অন্যান্য চাকরির পরিক্ষা দিয়ে ফেইল? আপনার চাকরির প্রবেশের বয়স কি শেষ পর্যায়? তাহলে আপনার জন্যই এই পোস্ট। পোস্টটি শেষ পর্যন্ত পড়তে হবে!  

আমাদের চাকরির বাজার খুব সীমিত এবং দিনে দিনে কম্পিটিশন আরো বাড়ছে।  আর বলে রাখা ভালো সরকারই সবচেয়ে বেশি নিয়োগ দিচ্ছে। চাকরির যোগানের স্বল্পতা এবং চাহিদার বিশাল ফারাকের কারণে আজকের এই বেকারত্ব।

কিন্তু বেঁকার হয়ে পড়ে থাকলে তো হবে না আমাদের ভালো কিছু করতে হবে। যেমন আপনি যদি প্রোগ্রামিং শিখেন আর নেটওয়ার্কিং বুঝেন তাহলে আপনি এই দক্ষতা দিয়ে অনেক ভালো ইনকাম করতে পারবেন। তাছাড়া প্রোগ্রামিং ও সফটওয়ার বুঝলে আপনি নিজেই উদ্যোগতা হতে পারবেন, আপনার হতে পারে বিশাল একটা ব্যবসা। তখন আপনি দিতে পারবেন অনেকে চাকরি।

ভাই আমি আর্টসে/ কমার্সে পরি। আমি কম্পিউটার, প্রোগ্রামিং কিছু বুঝি না! আমি কেমনে কি করব?

নো প্রবলেম – আপনিও পারবেন। আপনি জনাব মোস্তফা জব্বারকে চিনেন? তিনি একজন তথ্যপ্রযুক্তি বিশেষজ্ঞ। তিনি বেসিস এর সভাপতি। বর্তমানে মোস্তাফা জব্বারকে  মন্ত্রী (টেকনোক্র্যাট) করা হয়েছে।

তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে থেকে বাংলা বিভাগ থেকে স্নাতক পর্যায়ে পড়াশোনা শেষ করেন। তিনি এমএ করেন সাংবাদিকতা বিভাগ থেকে।

তিনি তার ক্যারিয়ারের একটা বিরাট সময় ব্যয় করেন সাংবাদিকতার মধ্য দিয়ে। পরে তিনি কম্পিউটার ব্যবসায়ে প্রবেশ করেন।

১৯৮৮ সালে তার প্রতিষ্ঠানের বিজয় বাংলা কিবোর্ড প্রকশিত হয় যা ১ম বাংলা কিবোর্ড এবং ইউনিকোড আসা পর্যন্ত অনেক ব্যবহৃত হয়েছে।

তবে অভ্র নিয়ে বিজয় এর একটা বড় বিতর্ক সৃষ্টি হয়: